1. admin@thedailyreport24.com : admin :
স্বাস্থ্য কৃষি সামাজিক নিরাপত্তায় জোর চাই | The Daily 24
মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১০:১৯ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
>>>পরীক্ষামূলক সম্প্রচার<<<

স্বাস্থ্য কৃষি সামাজিক নিরাপত্তায় জোর চাই

  • বুধবার, ১০ জুন, ২০২০
  • ৪৯ বার পড়া হয়েছে
স্বাস্থ্য কৃষি সামাজিক
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  Yum
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

স্বাস্থ্য কৃষি সামাজিক নিরাপত্তায় জোর চাই

দি ডেইলি রিপোর্ট২৪. নিউজ

এবারের বাজেট গতানুগতিক হবে না। করোনায় স্থবির হয়ে পড়েছে দেশের অর্থনীতি। মানুষের জীবন ও জীবিকা হুমকির মুখে। এ অবস্থায় অর্থনীতি ও জনজীবনকে গুরুত্ব দিয়ে বাজেট দিতে হবে। অর্থনীতিকে সচল করতে দুই বছরের একটি পরিকল্পনা করতে হবে।

সে ক্ষেত্রে স্বাস্থ্য, কৃষি ও সামাজিক নিরাপত্তা খাতে জোর দিতে হবে। আসন্ন বাজেট নিয়ে সাউথ এশিয়ান নেটওয়ার্ক অন ইকোনমিক মডেলিংয়ের (সানেম) নির্বাহী পরিচালক সেলিম রায়হান আমাদের দি ডেইলি রিপোর্ট২৪. নিউজ সঙ্গে আলাপকালে এ কথা

বলেন। সেলিম রায়হান বলেন, আগামী অর্থবছরের বাজেটে স্বাস্থ্য খাতকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। পাশাপাশি কৃষি ও সামাজিক সুরক্ষা খাতে প্রাধান্য দিতে হবে। কৃষির সঙ্গে অনেক মানুষ যুক্ত। কৃষি খাতে ভর্তুকি আছে।

আবার অনেক ক্ষেত্রে শুল্কও আছে। এসব শুল্কহার শূন্যে নামিয়ে আনতে হবে। এ ছাড়া করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় সরকার একটি প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছে, যা জিডিপির ৩ দশমিক ৩ শতাংশের মতো বড় আকারের একটি প্যাকেজ। কীভাবে প্যাকেজটি বাস্তবায়ন করা যায়, এ প্যাকেজের অর্থায়ন কীভাবে হবে সে বিষয়গুলো বাজেটে থাকতে হবে।

করোনার কারণে মানুষ কাজ হারাচ্ছে। বেকার হচ্ছে। ফলে আগামী বাজেটে তাদের জন্য বেকার ভাতা চালু করা যেতে পারে। মানুষ কাজ হারিয়ে দরিদ্র হচ্ছে। এ জন্য বাজেটে সামাজিক সুরক্ষা খাতে বরাদ্দ বাড়াতে হবে। পাশাপাশি অপ্রয়োজনীয় ব্যয় কমাতে হবে। কিছু প্রকল্প আছে, রাখার জন্য রাখা। কিন্তু মহামারীর কারণে সেগুলো না রাখাই ভালো।

অর্থনীতি সচল রাখতে আগামী দুই বছরের জন্য একটি পরিকল্পনা থাকা দরকার। পরিকল্পনার আলোকে অর্থনৈতিক কর্মকা- হওয়া উচিত সেখানেই থাকবে কীভাবে চালু হবে অর্থনৈতিক কর্মকা-। কিছু দিন আগে অপরিকল্পিতভাবে কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়ায় সংক্রমণ বাড়ছে। এতে ভবিষ্যতে সংকট আরও বাড়তে পারে। পরিকল্পনার আলোকেই ব্যবসা প্রতিষ্ঠান চালু করা দরকার।

 

স্বাস্থ্য কৃষি সামাজিক

স্বাস্থ্য, কৃষি, সামাজিক নিরাপত্তা এবং কর্মসংস্থান- এই চার ক্ষেত্রে বেশি গুরুত্ব দিয়ে আগামী অর্থবছরের (২০২০-২১) জাতীয় বাজেট প্রণয়নের সুপারিশ করেছে গবেষণা সংস্থা সেন্টার পর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি)। সংস্থাটি বলেছে, বাজেট ব্যয় নির্ধারণের ক্ষেত্রে অপ্রয়োজনীয় ও অনুন্নয়ন ব্যয় কমাতে হবে। যেসব কর্মকাণ্ড অর্থনীতিতে গতি সঞ্চার করবে, প্রণোদনা এবং কর্মচাঞ্চল্য সৃষ্টি করবে সেই ধরনের ব্যয় বাড়াতে হবে।

আসন্ন জাতীয় বাজেট কেমন হওয়া উচিত সে বিষয়ে গবেষণা সংস্থাটি সুপারিশমালা তুলে ধরতে গতকাল শনিবার এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। সিপিডির বাজেট প্রস্তাবনার উল্লেখযোগ্য অংশ তুলে ধরেন সংস্থাটির সিনিয়র রিসার্চ ফেলো তৌফিকুল ইসলাম খান। বক্তব্য রাখেন সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুন, সম্মাননীয় ফেলো অধ্যাপক মোস্তাফিজুর রহমান এবং গবেষণা পরিচালক ড. খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম। সিপিডির উপস্থাপনায় বলা হয়,

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে পুরো বিশ্বের অর্থনীতি মুখ থুবড়ে পড়েছে। দেশের মধ্যে এবং বিশ্বে এক দেশের সঙ্গে অন্য দেশের প্রায় পুরো যোগাযোগ বিচ্ছিন্নতা তৈরি হয়েছে। এতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতির শিকার দরিদ্র মানুষ। এখনও এদের অনেকে সরকারি সহায়তার বাইরে। তাদের সামাজিক সুরক্ষা কার্যক্রমের আওতায় আনতে বাজেটে পদক্ষেপ নিতে হবে। আগামী বাজেট থেকে পরবর্তী কয়েক বছরের বাজেটে অর্থনীতির পুনরুদ্ধারে সুনির্দিষ্ট কর্ম-পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করতে হবে।

সরকারের রাজস্ব আয় বাড়ানোর বিষয়ে সিপিডি বলেছে, রাজস্ব আয় জিডিপির আকারের তুলনায় মাত্র ৭ থেকে ৮ শতাংশ, যা পৃথিবীর বেশিরভাগ দেশের তুলনায় কম। সামান্য রাজস্ব আয় দিয়ে বিপুল সংখ্যক জনগোষ্ঠীর এদেশের উন্নয়ন বাজেটের চাহিদা পূরণ করা সম্ভব নয়।

রাজস্ব আয় বাড়ানোর জন্য করজাল বাড়াতে হবে। কর ফাঁকি রোধ এবং বিদেশে অর্থ পাচার বন্ধে কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে। তবে রাজস্ব আদায়ে বাস্তবসম্মত লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করতে হবে।

সিপিডির প্রতিবেদনে বলা হয়, জরুরি স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে অবকাঠামো উন্নয়ন ও যন্ত্রপাতি কিনতে হবে। এক্ষেত্রে প্রয়োজনে আমদানি কর পরিহার করতে হবে। বেসরকারি খাতের যেসব হাসপাতাল করোনাভাইরাস চিকিৎসায় কাজ করছে বা করবে, তাদের উৎসাহমূলক প্রণোদনা দিতে হবে। অধিক হারে কর্মসংস্থান সৃষ্টির জন্য কৃষিতে বরাদ্দ বাড়াতে হবে।

কারণ এখানে খরচ বাড়ালে নিম্ন আয়ের মানুষের কর্মসংস্থান তৈরির অনেক বেশি সুযোগ আছে। এবার ধান, গমসহ শস্য আহরণে সরকারকে অন্তত সাড়ে ছয় হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ রাখতে হবে।

ড. ফাহমিদা খাতুন বলেন, শুধু ব্যয় করলেই হবে না, সরকারি ব্যয় যথাযথ জায়গায় এবং কার্যকর ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। সরকারের সহায়তা যেন প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের কাছে যায় তা নিশ্চিত করতে হবে। হতদরিদ্র মানুষ যাতে যেকোনো প্রকারে মানবিক সহায়তা পেয়ে বেঁচে থাকতে পারে এবং ক্ষুদ্র ও মাঝারি প্রতিষ্ঠান যাতে তাদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পারে, তা নিশ্চিত করতে হবে। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, স্বাস্থ্য খাতকে ঢেলে সাজাতে হবে। আর রাজস্ব আয় বাড়াতে কর ফাঁকি বন্ধ করার ওপর এবার বেশি গুরুত্ব দিতে হবে।

অধ্যাপক মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, স্বাস্থ্য খাতের সরকারের ব্যয় প্রয়োজনের তুলনায় খুবই কম। এ কারণে স্বাস্থ্যসেবা পেতে মানুষকে ব্যক্তিগতভাবে খরচ করতে বাধ্য হচ্ছেন এবং এর পরিমাণ মোট স্বাস্থ্য সংক্রান্ত ব্যয়ের প্রায় ৭০ শতাংশ। এ হার উন্নত দেশগুলোর তুলনায় তো বটেই, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর তুলনায়ও বেশি। আগামী বাজেটে স্বাস্থ্য খাতের সরকারের ব্যয় জিডিপির তুলনায় অন্তত ২ শতাংশে উন্নীত করতে হবে। শুধু বরাদ্দ বাড়ালেই হবে না।

এ খাতে অবকাঠামোর উন্নয়ন করতে হবে ও দক্ষ জনবল তৈরিতে মনোযোগী হতে হবে। তিনি আরও বলেন, করোনাভাইরাস মহামারির কারণে প্রবাসী বাংলাদেশিদের অনেকে চাকরি হারিয়ে দেশে ফিরতে পারেন। এতে একদিকে রেমিট্যান্স আয় কমবে, অন্যদিকে তাদের কর্মসংস্থানের বিষয়ে এখনই ভাবতে হবে। এক্ষেত্রে কৃষি ও গ্রামীণ অর্থনীতিকেন্দ্রিক কিছু করা যায় কিনা বা যারা নিজেরা কিছু করতে চান, তাদের সহায়তা নিশ্চিত করতে হবে।

দি ডেইলি রিপোর্ট২৪. নিউজ

www.thedailyreport24.com

ভালো লাগলে এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই কেটাগরির আরো খবর
© All rights reserved 2020 thedailyreport24

প্রযুক্তি সহায়তা WhatHappen