1. admin@thedailyreport24.com : admin :
প্রয়োজনের বেশি খরচ যেন এখন না হয় 2020 | The Daily Report 24
মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ০৯:২১ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
>>>পরীক্ষামূলক সম্প্রচার<<<

প্রয়োজনের বেশি খরচ যেন এখন না হয়

  • সোমবার, ১২ অক্টোবর, ২০২০
  • ৭ বার পড়া হয়েছে
সাংবাদিকতায় দেশ ক্ষতিগ্রস্ত
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  Yum
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের সতর্কতা প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী

দ্য ডেইলি রিপোর্ট২৪. নিউজ

প্রয়োজনের বেশি খরচ যেন এখন না হয়

করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ের পরিস্থিতি সামাল দিতে প্রচুর অর্থের প্রয়োজন হবে- সে কথা মনে করিয়ে দিয়ে সরকারি ব্যয়ে মিতব্যয়ী হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, ‘করোনা ভাইরাস আবার ব্যাপক আকার নিলে তখন প্রচুর অর্থের প্রয়োজন হবে। মানুষকে আমাদের সহযোগিতা করতে হবে। হয়তো আরও ডাক্তার, নার্স লাগবে। সেদিকে লক্ষ্য রেখেই আমাদের মিতব্যয়ী হতে হবে। ঠিক যেটুকু আমাদের নেহায়েত প্রয়োজন, তার বেশি কোনো পয়সা খরচ করা চলবে না। ভবিষ্যতের দিকে লক্ষ্য রেখেই সেই ব্যবস্থা নিতে হবে।

গতকাল রবিবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সেনাবাহিনীর কয়েকটি ব্যাটালিয়নকে ‘ন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ড’ (জাতীয় পতাকা) প্রদান অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে তিনি এ বিষয়ে কথা বলেন। করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় সরকারের নেওয়া বিভিন্ন উদ্যোগ ও পদক্ষেপের কথা প্রধানমন্ত্রী এ অনুষ্ঠানে তুলে ধরেন।

মহামারীর মধ্যেও ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার বাজেট দেওয়ার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, এই বাজেট দেওয়া কঠিন ছিল। তবু আমরা দিয়েছি। তার পরও বলেছি যে অর্থ খরচের ব্যাপারে সবাইকে একটু সচেতন থাকতে হবে। সাভার সেনানিবাসে এই অনুষ্ঠানে সেনাবাহিনীর ১, ৩, ৬, ৮ ইঞ্জিনিয়ার ব্যাটালিয়ন, অ্যাডহক ১১ বীর মেকানাইজড ব্যাটালিয়ন, ১২ বীর, ১৩ বীর, ১৫ বীর সাপোর্ট ব্যাটালিয়ন, ৫৯ ইস্ট বেঙ্গল সাপোর্ট ব্যাটালিয়ন এবং স্কুল অব ইনফ্যান্ট্রি অ্যান্ড ট্যাকটিকসকে (এসআইঅ্যান্ডটি) ন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ড (জাতীয় পতাকা) দেওয়া হয়।

প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ সংশ্লিষ্ট ইউনিটের কমান্ডারদের কাছে জাতীয় পতাকা হস্তান্তর করেন।

সরকার সশস্ত্র বাহিনীর আধুনিকায়নে কাজ করে যাচ্ছে উল্লেখ করে দেশপ্রেম ও সর্বোচ্চ পেশাদারিত্ব বজায় রেখে সেনা কর্মকর্তাদের নিজ নিজ দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, সেনাবাহিনী দেশের সম্পদ ও মানুষের ভরসা এবং বিশ্বাসের প্রতীক। কোনো সেনাবাহিনী মানুষের আস্থা, বিশ্বাস যদি অর্জন করতে না পারে, তা হলে কখনো তারা কোনো বিজয় অর্জন করতে পারে না। তাই আপনাদের সবাইকে পেশাগতভাবে দক্ষ, সামাজিক ও ধর্মীয় মূল্যবোধে উদ্বুদ্ধ হয়ে সৎ এবং মঙ্গলময় জীবনের অধিকারী হতে হবে। দেশপ্রেম ও সর্বোচ্চ পেশাদারিত্ব বজায় রেখেই আপনাদের দায়িত্ব পালন করতে হবে। আর বাংলাদেশের জনগণ- এরা তো আপনাদেরই আপনজন। আপনাদেরই পরিবারের সদস্য। কাজেই তাদের কল্যাণের কথা চিন্তা করে আপনাদের কাজ করতে হবে।

জাতীয় পতাকা পাওয়ার যোগ্যতা অর্জন করা যে কোনো ইউনিটের জন্য ‘সম্মান ও গৌরবের বিষয়’ মন্তব্য করে পতাকা পাওয়া ইউনিটগুলোর উদ্দেশে সরকারপ্রধান বলেন, আপনারা এই গৌরব অর্জন করেছেন। আমি আশা করি, জাতির আস্থা, বিশ্বাস অটুট থাকবে। দেশসেবায় আপনারা আত্মনিয়োগ করবেন। দেশমাতৃকার সেবা করাটাই হচ্ছে সব থেকে বেশি গৌরবের। কাজেই আপনারা সেদিকে বিশেষভাবে মনোনিবেশ করবেন।

সশস্ত্র বাহিনীতে নারী সদস্যদের গুরুত্বপূর্ণ অবদানের কথা তুলে ধরে তাদেরকেও অভিনন্দন জানান শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, একটি কথা সব সময় মনে রাখতে হবে। আমাদের সংবিধান, স্বাধীনতার পর মাত্র নয় মাসের মধ্যে জাতির পিতা সংবিধান আমাদের উপহার দিয়েছিলেন। যে সংবিধানে একটি রাষ্ট্র পরিচালনার সব দিকনির্দেশনা দেওয়া আছে। কাজেই সংবিধানকে সমুন্নত রেখে দেশকে আমরা এগিয়ে নিয়ে যাব।

প্রাকৃতিক দুর্যোগে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর পাশাপাশি করোনা ভাইরাস মহামারী মোকাবিলায় জনগণের সহযোগিতায় এগিয়ে আসায় সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী ও বিমানবাহিনীর সদস্যদের ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী।

একটি শক্তিশালী সশস্ত্র বাহিনী গড়ে তুলতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৪ সালে যে প্রতিরক্ষানীতি প্রণয়ন করেছিলেন, সে কথা মনে করিয়ে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার (বঙ্গবন্ধু) সুদূরপ্রসারী এ নির্দেশনার আলোকেই সেনাবাহিনীর আধুনিকায়নের কাজ চলছে। আওয়ামী লীগ যখনই সরকার গঠন করেছে, সশস্ত্র বাহিনীর উন্নয়নে কাজ করেছে মন্তব্য করে এ বিষয়ে সরকারের নেওয়া বিভিন্ন উদ্যোগের কথাও অনুষ্ঠানে তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী। প্রয়োজনের বেশি খরচ যেন এখন না হয়

দ্য ডেইলি রিপোর্ট২৪. নিউজ

www.thedailyreport24.com

ভালো লাগলে এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই কেটাগরির আরো খবর
© All rights reserved 2020 thedailyreport24

প্রযুক্তি সহায়তা WhatHappen